আলোড়ন নিউজ
Lead News প্রবাস রাজনীতি

এসকে সিনহা যুক্তরাষ্ট্রে বাড়ি-গাড়ি বিক্রি করে, কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক, আলোড়ন নিউজ:  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন দীর্ঘদিন ঝুলে থাকার পর অবশেষে সেখানকার বাড়ি-গাড়িসহ অন্যান্য সম্পত্তি বিক্রি করে দিয়েছেন আলোচিত সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার (এসকে) সিনহা। বর্তমানে তিনি দেশটিতে রাজনৈতিক আশ্রয় না পেয়ে কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন জানান।

কানাডার দি স্টার জানিয়েছে, গত ৪ জুলাই ফোর্ট এরি সীমান্ত হয়ে সিনহা কানাডায় প্রবেশ করেন এবং সেখানে তার রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন জমা দেন।

টরন্টো থেকে প্রকাশিত কানাডিয়ান কুরিয়ার জানিয়েছে, সিনহার সঙ্গে তার স্ত্রী সুষমাও কানাডায় রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন।

সূত্রের বরাতে গণমাধ্যমের দাবি, যুক্তরাষ্ট্রে দীর্ঘদিন যাবত রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে শেষ পর্যন্ত তেমন একটা ইতিবাচক সাড়া পাননি সাবেক এই বিচারপতি। সম্প্রতি তরুণ এক ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা সিনহার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন; যেখানে তিনি বিচারপতি সিনহার বক্তব্য ‘সন্তোষজনক নয়’ বলেও জানিয়েছেন।

যে কারণে পরবর্তীতে তার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য দেশটির রিফিউজি বিষয়ক আদালতে আবেদনটি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। এর পর তার আবেদনে আর কোনো অগ্রগতি হয়নি। যদিও এরই মধ্যে সিনহার স্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়ায় তিনি কানাডাকেই পরবর্তী গন্তব্য হিসেবে বেছে নেন। যুক্তরাষ্ট্রে এতদিন শুধু এসকে সিনহা নিজের রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য আবেদন করেছিলেন। তবে এবার কানাডায় সাবেক এই বিচারপতির সঙ্গে তার স্ত্রীও আবেদন করেছেন।

সূত্রের দাবি, গত ৪ জুলাই সড়ক পথে কানাডায় গিয়ে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেন বিচারপতি সিনহা। এই সফরে অসুস্থ স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে নিজেই গাড়ি চালিয়ে কানাডায় যান তিনি। টরেন্টোর স্কারবোরো এলাকায় একটি কন্ডোমিনিয়াম ভাড়া নিয়ে আপাতত সেখানেই স্ত্রী-কন্যাসহ অবস্থান করছেন এই বিচারপতি। তার এই আশ্রয় আবেদনের ওপর আগামী মাসে শুনানি হবে বলে জানা গেছে।

এর আগে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে বাংলাদেশ সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হলে এসকে সিনহার সঙ্গে ক্ষমতাসীন দলের বিরোধ প্রকাশ্যে আসে। সেই রায়ে সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতি অপসারণে জাতীয় সংসদের ক্ষমতা বাতিল করা হয়।

মূলত এর পরই ক্ষমতাসীন নেতারা বিচারপতি সিনহার বিরুদ্ধে একে একে মুখ খুলতে শুরু করেন। যার প্রেক্ষিতে এক রকম চাপে পড়ে ছুটিতে যান এই বিচারপতি। এর পরও পরিস্থিতির কোনো উন্নতি না হওয়ায় একই বছরের ১৭ নভেম্বর বিদেশে থেকেই সিনহা নিজের পদত্যাগপত্র দাখিল করেন।

ছুটিতে থাকাকালীন তিনি ঢাকা থেকে প্রথমে সিঙ্গাপুর যান। এর পর অস্ট্রেলিয়া হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়ে নিজের রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেন। বর্তমানে তিনি সপরিবারে কানাডায় অবস্থান করছেন।

Related posts

তরুণ প্রজন্ম ক্ষতিগ্রস্ত হয় ফেসবুক, ইউটিউব, গুগল ব্যবহার করে

Ashish Mallick

গণভবনে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন প্রধানমন্ত্রী

Ashish Mallick

সাতক্ষীরায় এ পর্যন্ত মোট ৫০০ জন ডেঙ্গু রোগী সনাক্ত

Ashish Mallick

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.