আলোড়ন নিউজ
Lead News জাতীয়

মার্চজুড়ে আবহাওয়ার বিরূপ আচরণের পূর্বাভাস

সকালে বাইরে বের হয়ে বোঝার উপায় নেই এটা মধ্য ফাল্গুনের সকাল নাকি পৌষের। কুয়াশা, হালকা শীত, মেঘলা আকাশ, সঙ্গে বাতাস। আবহাওয়ার এই বিরূপ আচরণ মার্চ মাসজুড়েই অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদরা। এই মাসে ঝড়োহাওয়া, শিলাবৃষ্টি, বন্যা, দাবদাহ সবই থাকবে বলে জানিয়েছেন তারা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুস ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘পশ্চিমী ঝঞ্ঝার সঙ্গে বাংলাদেশের ওপর ঘূর্ণাবর্তের প্রভাব রয়েছে। এর প্রভাবে বুধবার পর্যন্ত উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির সঙ্গে ঝড়ের পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। ঢাকায় আজ থেকেই এর প্রভাবে ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। এই অবস্থা আগামী ৬ মার্চ পর্যন্ত চলবে।’

রুহুল কুদ্দু বলেন, ‘কালবৈশাখীর পাশাপাশি এই মাসের শেষ দিকে তাপপ্রবাহও বয়ে যেতে পারে দেশের ওপর দিয়ে। সে সময় থার্মোমিটারের পারদ উঠতে পারে ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। এ মাসেই দেশের ‍উত্তর, উত্তর-পশ্চিম ও মধ্যভাগে ১ থেকে ২ দিন শিলাবৃষ্টিসহ মাঝারি বা তীব্র কালবৈশাখী বা বজ্রঝড় হতে পারে। পাশাপাশি দেশের অন্যান্য জায়গায় ৩ থেকে ৪ দিন শিলাবৃষ্টিসহ হালকা বা মাঝারি কালবৈশাখী বা বজ্রঝড় হতে পারে।’

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মার্চ মাসে সামকগ্রিকভাবে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এ মাসে দেশের উত্তর পশ্চিম ও মধ্যাঞ্চলে ১/২দিন শিলাবৃষ্টিসহ মাঝারী থেকে তীব্র কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে। দিনের তাপমাত্রা ৩৪-৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি থাকতে পারে এবং মাসের শেষের দিকে মাঝারি ধরনের তাপ প্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

ভারী বর্ষণের কারণে এ মাসেই দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে আকস্মিক বন্যার শঙ্কা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে মার্চের দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও ঢাকা বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্তভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহওায়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। এদিকে সোমবার সকাল থেকে রাজধানীর আকাশ মেঘলা রয়েছে।

সোমবার সকালে আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাজশাহী, পাবনা, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ময়মনসিংহ, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং টাঙ্গাইল অঞ্চলের ওপর দিয়ে পশ্চিম/উত্তর-পশ্চিম দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কি.মি. বেগে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সাথে বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

সিনপটিক অবস্থা বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমের স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। সারা দেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য হ্রাস পেতে পারে এবং রাতের তাপমাত্রা দুই ডিগ্রি সেলসিয়াস বৃদ্ধি পেতে পারে। দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ৩০.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ১০.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

Related posts

দেশের প্রথম সৌর বিদ্যুৎকেন্দ্র : রাঙামাটির কাপ্তাই

Ashish Mallick

ঈদে মহাসড়কে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়া কোনো যানবাহন থামানো যাবে না।

Ashish Mallick

প্রভাবশালীরা কোন সরকারি কাজে বাঁধা দিলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে

Ashish Mallick

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.