আলোড়ন নিউজ
Lead News সারাদেশ

বৌদ্ধ ভিক্ষুক কর্তৃক সংখ্যালঘু সনাতনী সম্প্রদায়ের পবিত্র শশ্মানের জমি দখল

রাজ, নিজস্ব প্রতিবেদক:  চট্টগ্রাম জেলার, রাংগুনিয়া থানার অন্তর্গত,১০নং পদুয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড ফলহারিয়া গ্রামের, মনিন্দ্র পাড়ার ঐতিহ্যবাহী হিন্দুদের পবিত্র শশ্মান ভূমি জোর পূর্বক দখল করার চেষ্ঠা চালাচ্ছে অত্র এলাকারি বুদ্ধ ধর্মীয় গুরু শরণাঙ্ক ভিক্ষু।
২০০০ সালে, অত্র ইউনিয়নের প্রভাবশালী মরহুম মাহাবুব আলম চেয়ারম্যান ও ফরেস্ট ডিফার্টমেন্ট এর কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে অত্র ওয়ার্ডের হিন্দু সম্প্রদায়ের মৃতদেহ সৎকারের সুবিধার্থে পবিত্র শশ্মান ভূমির জন্য নির্ধারিত জায়গা হস্তান্তর ও সীমানা খুঁটির মাধ্যমে শশ্মান ভূমি স্থান নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। সেই থেকে আজ অবদি অত্র এলাকার সনাতনী সম্প্রদায়ের লোকজন তাদের আত্মীয়  স্বজনদের মৃতদেহ দাহ ও সৎকারের কাজ সম্পাদন করে আসছিলেন ওই ভূমিতে। কিন্তু গত সোমবার ১০ জুন ২০১৯ খ্রিঃ অত্র এলাকার একজনকে শশ্মানে দাহ করতে নিয়ে গেলে শরণাঙ্ক ভিক্ষু উনার প্রায় ৪০০-৫০০ সেবকদের নিয়ে এসে ভয় দেখায়। বলে এইখানে দাহ করা যাবেনা অন্য জায়গায় করেন।এইখানে বুদ্ধ মন্দির স্থাপিত হবে। এলাকাটিতে হিন্দু পরিবার আছে মাত্র ৩০ টি যার জনসংখ্যা হবে প্রায় ১৫০ জন।
সেই সংখ্যালঘুর সুযোগ নিয়ে বুদ্ধ ধর্মীয় গুরু শরণাঙ্ক ভিক্ষু জায়গা দখলের জন্য এই পর্যন্ত তিনবার চেষ্ঠা চালিয়েছে।
এমনকি তাদেরকে ভয় দেখিয়ে একটি সাদা কাগজে কয়েকজন থেকে স্বাক্ষর নিয়েই নিয়েছে।বলেছে সাদা কাগজে স্বাক্ষর না দিলে মৃতদেহ দাহ করতে দেওয়া হবেনা। ৪০০-৫০০ উচ্ছৃঙ্খল বৌদ্ধ দাঙ্গাবাজ জনগোষ্ঠীর মাঝে অত্র এলাকার হিন্দুরা আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। গত ২০ বছর ধরে তাদের পূর্ব পুরুষরা পবিত্র শশ্মান ভূমিটি সুন্দর ভাবে ব্যবহার করে আসছিলেন। কিন্তু কয়েকবছর ধরে ভিক্ষু বিভিন্নভাবে পায়তারা করছে জমি হাতিয়ে নেওয়ার জন্য।
ঐ এলাকার বুদ্ধ সমাজ হিন্দুদের এমনভাবে ভয় দেখিয়েছে জায়গা না দিলে যেইকোন সময় হিন্দুদের উপর তারা আক্রমনও করতে পারে।
আমরা তাদের কান্নায় জর্জরিত অবস্থায় দেখে এসেছি পবিত্র শশ্মান ভূমি থেকে তাদের অধিকার ছিনিয়ে নেওয়ার কষ্ট।
তারা বর্তমান তথ্যমন্ত্রী জননেতা ডঃ হাসান মাহমুদ এমপি মহোদয় ও বাংলাদেশের সকল হিন্দু সংগঠনকে তাদের পাশে দাড়ানোর জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন ।

Related posts

“সমর্থন করি প্রিয় নেত্রীর শুদ্ধ অভিযানকে”- বিশ্বজিৎ হাওলাদার

Ashish Mallick

করোনার সাথে ১৮ দিন লড়ে জয়ী হলেন সেই এসিল্যান্ড, জানালেন এক দীর্ঘ অভিজ্ঞতা!

Ashish Mallick

২০ লক্ষ হিংস্র বিড়ালের বিরুদ্ধে অস্ট্রেলিয়া সরকারের অভিযান

KOLLOL ROY

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.