আলোড়ন নিউজ
Lead News মুক্তমত রাজনীতি

স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতি আর বিশিষ্ট লোকের মৃত্যু দেশের অপুরনীয় ক্ষতি : তসলিম উদ্দিন রানা

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বাস্থ্য খাতের দুর্নীতি আর বিশিষ্ট লোকের মৃত্যু দেশের অপুরনীয় ক্ষতি বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক ছাত্রনেতা ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ উপ কমিটির সদস্য তসলিম উদ্দিন রানা।এ নিয়ে বিশদ আকারে তুরে ধরা এক প্রতিবেদন পাঠকদের উদ্দেশ্য তুলে ধরা হলো।

করোনা ভাইরাস দুর্যোগের কারনে মানুষের কষ্টের শেষ নাই।মানুষ খুব কষ্টের সাথে জীবন যাপন করছে।প্রায় ২ মাসের অধিক লকডাউন ছিল।সব কিছু বন্ধ আর স্তব্ধতা। কোথাও নেই কোন হাসিখুশি সব জায়গায় অস্থিরতা আর নিস্তব্ধতা।কারো মনে নেই কোন আনন্দ।

সমাজের ধনী ব্যক্তি থেকে শুরু করেশ্রমিক,কৃষক, কর্মকর্তা,কর্মচারী,ব্যাংকার, ডাক্তার,উকিল,আমলা,রিক্সাওয়ালা, গাড়ির চালক সবাই করোনা ভাইরাসের ভয়ে অস্থির।এমনকি বিখ্যাত আলেম, বুদ্ধিজীবী,রাজনীতিবিদ, মুক্তিযোদ্ধা,ব্যবসায়ী,ব্যাংকার,ডাক্তার,নার্স,পুলিশ,আমলা সহ অনেকে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন।আবার কেউ কেউ আক্রান্ত হয়ে হোম কোয়ান্টাম আছে। অফিস আদালত, সরকারি- বেসরকারি সব কিছু বন্ধ।শুধু মাত্র মোবাইল ফোন কোম্পানি,মুদীর দোকান ও ঔষধ দোকানের জমজমাট ব্যবসা চলছে।

স্বাস্থ্য খাতে দুর্নীতি এক বড় সমস্যা।একদিনে তা তৈরি হয়নি বিগত অনেক দিনের জঞ্জাল সরানোর খুব কষ্টসাধ্য ব্যাপার, তবুও সরকার চাইলে বা কঠিন ভাবে আইন প্রয়োগ করলে তা অনেকাংশ কমে যাবে।করোনা দুর্যোগের সময় স্বাস্থ্য ডিজি মাস্ক নিয়ে যে কাণ্ড করেছে তা সকলের কাছে জানা।শুধু মাস্ক নয় সব কিছুতে দুর্নীতি করেছে তার সাথে মন্ত্রীর পুত্র সহ অনেকে জড়িত আছে।তারা শুধু বিল্ডিং এর দিকে নজর দিয়ে হাজার হাজার কোটি টাকার কাছ করেছে কিন্তু নিজেরা কমিশন ভালো করে নিয়েছে আর দেশের তেরেটা বাজিয়ে দিচ্ছে।বাস্তবতা হল সবাই বিল্ডিংয়ের কাজ করেছে বেশী কিন্তু ডাক্তার নার্স ও চিকিৎসা সরঞ্জামের বেশ উন্নত হয়নি এমনকি তারা নজর দেয়নি।প্রত্যেকে নিজের পার্সেন্ট ভালোভাবে নিয়ে নিয়েছে।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের পিওন ও কর্মচারী কোটি কোটি টাকার মালিক বনে যায় সেখানে কর্মকর্তারা কত টাকার মালিক তা থেকে সহজে অনুমান করা যায়।স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সব জায়গায় দুর্নীতি করাল গ্রাসে নিমজ্জিত। সবাই যার যার মত টাকার মালিক হয়েছে কিন্তু বাস্তবে কাজের কাজ করেনি।সবার্ঙ্গে ব্যাথা ঔষধ দেব কোথা একথা মনে পড়ে যায়।তবুও সরকারের উচিত এই মন্ত্রণালয়ের দিকে নজর দিয়ে দুর্নীতিবাজ আমলা ও কর্মচারীর বিচার করে যাওয়া হল আসল কাজ আর অথর্ব মন্ত্রীকে সরিয়ে একজন অভিজ্ঞ লোক মন্ত্রী করে তার নেতৃত্বে কাজ করে যাওয়া হবে সঠিক।

মহাদুর্যোগে এক শ্রেণীর ধান্ধাবাজ,লোভী লোকেরা হাসপাতালের নামে কোটি কোটি টাকার ব্যবসা করেছে।আর কেউ পাইকারী ব্যবসা করে জিনিসপত্রের দাম বাড়িয়ে কোটি কোটি টাকার মালিক বনে যায়।যা অত্যন্ত দুঃখজনক ঘটনা।এটা মেনে নেওয়া যায়না।তাদের প্রতি ধিক্কার জানাই।এসব দুর্নীতিবাজ চিহ্নিত করে বিচার করা জরুরী।কেননা তারা দেশ জাতীর শত্রু।তাদের বিচার করলে দুর্নীতি অনেকাংশে কমে যাবে।মানুষ শান্তি পাবে। আমরা যারা সচেতন তারা সব সময় এর বিরুদ্ধে কোন না কোন ভাবে লড়াই সংগ্রাম করে যাচ্ছি।কিন্তু আমরা সংখ্যায় কম।তবুও দমে যায়নি।আমাদের সংগ্রাম অব্যাহত আছে থাকবে।কিছু ক্ষেত্রে সাফল্য ফেলেও বেশি ভাগ ক্ষেত্রে সফলতা পায়নি।

আমরা একটা জিনিস এই করোনার কারনে দেখতে পেলাম দেশের বুদ্ধিজীবী,জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ,প্রসিদ্ধ আলম,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী,ডাক্তার ও আমলা হায়িয়েছি যা অত্যন্ত ক্ষতিকর দিক।কারণ মেধার শুন্যদিকে চলে যাচ্ছি যা পুরন হবার বিষয় নই।বিজ্ঞানী ন্যাপোলিয়ান বলেছে তোমরা আমাকে একজন শিক্ষিত মা দাও আমি তোমাদের শিক্ষিত জাতি দেব।মেধার শুন্য মানে জাতি শুন্য।এসব জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান বীরদেরকে প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাই। এমনকি দেখতে পেলাম বিভিন্ন রাজনীতিবিদ,ডাক্তার,পুলিশগন অনেকে সেবা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেন যা বলার ভাষা নাই।জাতীর ক্রাইসিস মোকাবিলায় তাদের অবদান অতুলনীয়।

তারা সেবা দিতে গিয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে।এমনকি তাদের পরিবারের সদস্যদের আক্রান্ত হয়েছে বেশী। তারা বীর দেশপ্রেমিক।তারা জাতির সূর্য সন্তান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বে করোনা ভাইরাস দুর্যোগ মোকাবিলায় দারুণ কাজ করেছে যা অত্যন্ত প্রশংসনীয় কিন্তু তার মন্ত্রী সভার স্বাস্থ্য,বানিজ্য মন্ত্রীর বেফাঁস কথাবার্তা ও অযোগ্যতার কারণে অনেক কিছু নিষ্প্রাণ হয়ে যায়,সাথে শিল্প,ত্রান ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রীর কাজ কর্ম খুবই হতাশাজনক। এসব মন্ত্রীদের বাদ দিয়ে দলের দক্ষ,পরিক্ষীত,মেধাবী লোকদের যথাযথ মুল্যায়ন করলে অনেক সাফল্য বয়ে আনবে।দল যেমন লাভবান হবে তেমনি দেশ উন্নত শিখরে আরোহন করবে।

আমাদের মুল সমস্যা চিকিৎসা ব্যবস্থা।বেশিভাগ মেডিকেল চিকিৎসা নাদিয়ে বন্ধ করে দিচ্ছে।যারা বছরের পর বছর হাসপাতাল চালিয়ে কোটি কোটি কোটি টাকা ইনকাম করে নিয়ে যায়।আর দেশের করোনা দুর্যোগের সময় এক শ্রেণীর মালিক চিকিৎসা নাদিয়ে আর সরকারের কথা না শুনে হাসপাতাল বন্ধ করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া জরুরী। কারন তারা দেশদ্রোহী বিশ্বাসঘাতক। তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে নাহলে দেশের অস্তিত্বের ঠিক থাকবেনা। আমরা বাঙালী জাতী বীরের জাতী।আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সন্তান।আমরা স্বাধীনতা আন্দোলন থেকে শুরু করে সব অসম্প্রাদায়িক,স্বৈরাচারী আন্দোলন করে এগিয়ে যাচ্ছি। ভবিষ্যতে দেশরত্ন শেখ হাসিনার আধুনিক বাংলা গঠনে এগিয়ে যাচ্ছি।তবুও এ দুঃসময়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাবে।জয় সত্যের,সুন্দর আর আদর্শের হবে।

Related posts

এবার রোহিঙ্গাদের চাল সহায়তা দিচ্ছে চীন

Ashish Mallick

বিএনপির কার্মকাণ্ড এলোমেলো, লেজেগোবরে : ওবায়দুল কাদের

Ashish Mallick

এন্টিবায়োটিকে রোগ সারছে না, যা বাংলাদেশের জন্য অশনি সংকেত!

Ashish Mallick

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.