আলোড়ন নিউজ
Lead News মুক্তমত সারাদেশ

নাসিমের মৃত্যুতে আবেগাপ্লুত হয়ে অপু উকিলের এক বিবৃতি

নিজস্ব প্রতিবেদক: গত কয়েকদিন ধরে গণমাধ্যমে শীর্ষ খবরগুলোতে রাখা হয়েছিল নাসিমের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত আপডেট। আর তা প্রতিনিয়ত ছড়িয়ে পড়তো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এ নিয়ে মানুষের কৌতুহলও ছিল ব্যপক। দলের ত্যাগী নেতাদের বেশ কৌতুহল ছিল নাসিমকে নিয়ে। এর যথেষ্ট কারণও ছিল। জাতীয় চারনেতার অন্যতম ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর ছেলে তিনি। সাবেক মন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য। দীর্ঘদিন ধরে দায়িত্ব পালন করেছেন ১৪ দলের মুখপাত্র হিসেবে। তিনি অংশ নিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধে। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনসহ বাংলাদেশের সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তাঁর ভূমিকা ছিল উল্লেখযোগ্য।

নাসিমের মৃত্যুর খবর শুনে আবেগাপ্লুত হয়ে মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অপু উকিল শোক প্রকাশ করে এক বিবৃতি দেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, শ্রদ্ধেয় নাসিম ভাই চলে গেলেন। সুদীর্ঘ দুই যুগ ধরে তার বাড়ির পাশেই আমাদের ঠিকানা। জানালা খুললেই নাসিম ভাইকে দেখতে পেতাম। আজ সেই বাড়িটায় সুনসান নীরবতা শূন্যতায় নিমজ্জিত। তার চলার পথের প্রতিটি অধ্যায় আমাদের ইতিহাস। ২০০২ সালে রাসেল স্কয়ারে যখন আওয়ামীলীগ ঘোষিত কর্মসূচি পালন কিংবা পিকেটিং করতে যেতাম তখন বিএনপি-জামায়াত জোটের লেলিয়ে দেওয়া পুলিশ বাহিনী আমাদের নেতা কর্মীদের চুলের মুঠি ধরে পিটিয়ে রক্তাক্ত করে পুলিশ ভ্যানে করে থানায় নিয়ে যেত। মনে পড়ছে আমি নাসিম ভাইকে বলেছিলাম, আপনিতো সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, আপনার সাথে যদি আমরা রাজপথে থাকি তাহলে পুলিশ আমাদের নির্যাতন কম করবে। তিনি রাজি হয়েছিলেন। প্রতিটি কর্মসূচিতে তিনি থেকেছেন এবং সমাপনী বক্তব্য দিয়ে বাড়ি ফিরেছেন। ২০০৪ সালের ৩ মার্চ আমাদের পুলিশি অত্যাচার থেকে বাঁচাতে গিয়ে তিনিই পুলিশের লাঠির আঘাতে রক্তাক্ত হয়েছিলেন। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। সে সময় আমরা প্রায়ই দিনব্যাপী কর্মসূচি পালন করবার জন্য সকাল সাতটায় বাসা থেকে বের হতাম এবং রাতে বাড়ি ফিরতাম। দুপুরে নাসিম ভাইয়ের বাড়িতে যুব মহিলা লীগের নেতাকর্মীসহ সকলেই ভাবির নিজ হাতে রান্নাকরা খাবার খেতাম। পুলিশ যখন নেতাকর্মীদের তাড়া করত, গুলি চালাতো তখন দৌড়ে সকলেই নাসিম ভাইয়ের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছি। ওয়ান ইলেভেন সরকার নাসিম ভাইকে গ্রেপ্তার করে ভয়াবহ নির্যাতন চালিয়েছিল। তার জীবনের প্রতিটি পড়তে পড়তে শোক সংগ্রাম আর সফলতা উপাখ্যান রয়েছে।
মৃত্যুর পরপারে তিনি ভাল থাকুন। ভাবছি কত শত বছরে আমরা আবার বর্ণাঢ্য জীবনের এমন নেতা পাব।

Related posts

পার্থর ফেসবুক আইডি হ্যাকড

Ashish Mallick

মসজিদে প্রথম কাতারে শুধু অফিসাররা বসবে,নোটিশ নিয়ে পরস্পরকে দোষারোপ ইমাম ও কমিটির

Ashish Mallick

নোবেল বিজয়ী অভিজিৎ বলেন ভারতের তুলনায় বাংলাদেশের অর্থনীতি সঠিক পথে

Ashish Mallick

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.