আলোড়ন নিউজ
Lead News অপরাধ আন্তর্জাতিক

কর্মীকে অপহরণ ও মারধরের পর বিশেষাঙ্গে স্যানিটাইজার স্প্রে করলেন মালিক

নিজস্ব প্রতিবেদক: করোনাভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে যাওয়ার ফলে ভারতে লকডাউন শুরু হওয়ার আগে অন্য শহরে কাজ করতে গিয়ে আটকা পড়েন এক ব্যক্তি। পরে কোন উপায় না পেয়ে বাধ্য হয়ে হোটেলে থাকতে হয়েছে যার জন্য কম্পানির অনেক টাকা খরচ করে ফেলেন সেজন্য কর্মীকে অপহরণ ও মারধরের করার পর বিশেষাঙ্গে স্যানিটাইজার স্প্রে করলেন কম্পানির মালিক।

এই ঘটনা নিয়ে ভুক্তভোগী কথা কাটাকাটি শুরু।যার ফলে মালিক তার উপরে রাগান্বিত হয়ে এমন আচারন করেছেন বলে জানান এছাড়াও তিনি দুই কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবক।

পুলিশ জানিয়েছে, মারধরের ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৩ ও ১৪ জুন। কিন্তু ২ জুলাই থানায় গিয়ে এফআইআর অভিযোগ করেন ওই যুবক।ফলে এ ঘটনা সামনে নজরে পড়ে।

পরে জানা গেছে,অভিযোগে ভুক্তভোগী ভারতের মহারাষ্ট্রের কোথরুডে একটি ফার্মে ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করতেন ৩০ বছর বয়সী ওই কর্মী। বিভিন্ন জায়গায় চিত্র প্রদর্শনীর সব ব্যবস্থা করে থাকে ফার্মটি। সে রকমেরই একটি কাজে মার্চ মাসে লকডাউনের আগে দিল্লি গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেখানে যাওয়ার পরই লকডাউন ঘোষণা করায় তিনি আটকা পড়ে যায় তিনি।

অভিযোগে ভুক্তভোগী উল্লেখ করেছেন,লকডাউনের আগে অন্য শহরে কাজে গিয়ে আটকে যান এক কর্মী। বাধ্য হয়ে লজে থাকতে গিয়ে কোম্পানির অনেক টাকা খরচ করে ফেলেন তিনি। আর সেই নিয়েই বচসা। রাগে কোম্পানির মালিক তাঁকে অপহরণ করে মারধর করেছেন বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয়, তাঁর যৌনাঙ্গে স্যানিটাইজার স্প্রে করা হয়েছে বলে অভিযোগ। মালিক ও আরও দুই কর্মীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবক।

যুবক নিজের অভিযোগে বলেছেন, বাধ্য হয়ে একটি হোটেলে তাকে থাকতে হয়। এই থাকা ও খাওয়ার খরচ বাবদ কম্পানির পক্ষ থেকে তাকে যে টাকা দেওয়া হয়েছিল, তা খরচ হয়ে যায়। এ কথা কম্পানির মালিককে তিনি জানিয়েছিলেন।

জানা গেছে, ৭ মে পুনে ফিরে আসেন ওই যুবক। তখন কম্পানির মালিক ওই যুবককে ১৭ দিনের জন্য একটি হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলেন। বাধ্য হয়ে সেটাও করেন ওই যুবক। টাকা না থাকায় বাধ্য হয়ে হোটেল মালিকের কাছে নিজের ফোন ও ডেবিট কার্ড জমা রাখতে হয় তাকে।

যুবকের অভিযোগ, ১৩ জুন কম্পানির মালিক ও আরেক কর্মী এসে তার কাছে দিল্লিতে খরচ করা টাকা ফেরত চান। তিনি বলেন, সেই মুহূর্তে তার কাছে টাকা নেই। আর তা নিয়েই কথা কাটাকাটি শুরু হয়। তারপর ওই যুবককে অপহরণ করে গাড়িতে করে মালিক ও তার সহকারী চলে যান।

জানা গেছে, ফার্মের অফিসেই ওই যুবককে আটকে রাখা হয়। মালিক ও আরো দুই কর্মী তাকে মারধর করেন। তার গোপনাঙ্গ ও অন্যান্য বিশেষ স্থানে স্যানিটাইজার স্প্রে করে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। তারপর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

তারপরে সে প্রথমে একটি হাসপাতালে ভর্তি হন ওই যুবক। তারপর কিছুটা সুস্থ হয়ে থানায় এসে তিনজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন তিনি। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। এখন পর্যন্ত পুলিশ কাওকে গ্রেপ্তার পারেনি।

Related posts

জনসভার অনুমতি পেলো বিএনপি

Ashish Mallick

রানীশংকৈল বাসিকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছে সাবেক ছাত্রনেতা রুকুনুল ইসলাম ডলার।

Prianka

বাবরী মসজিদ ধ্বংসের বার্ষিকীতে মিছিল-সমাবেশে উত্তাল কোলকাতা

Ashish Mallick

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.