আলোড়ন নিউজ
Lead News সারাদেশ

করোনায় বাবার মৃত্যু শুনেও আসলেন না রিজেন্টের মালিক সাহেদ ও তার নিকটাত্নীয়রা

নিজস্ব প্রতিবেদক:দেশের মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন  রিজেন্ট হাসপাতালের মালিক মো. সাহেদের বাবা সিরাজুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে রাজধানীর মহাখালীতে অবস্থিত ইউনিভার্সেল মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে (সাবেক আয়েশা মেমোরিয়াল) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

করোনায় বাবার মৃত্যু শুনেও আসলেন না রিজেন্টের মালিক সাহেদ ও তার নিকটাত্নীয়রা। জানা গেছে, রাতে লোক পাঠিয়ে হাসপাতাল থেকে মরদেহ নিয়ে গেছে পরিবার

পরে এ বিষয়টি গণমাধ্যমে নিশ্চিত করে ওই হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী বলেন, সিরাজুল ইসলাম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। তিনি তাদের হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন ছিলেন। তার নিউমোনিয়াসহ অন্যান্য জটিলতা পাওয়া গিয়েছিল।

জানা গেছে, গত ৪ জুলাই সাহেদ তার বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করান। ভর্তির পর প্রথম দুদিন সাহেদ তার বাবার খোঁজ নিয়েছেন। এরপর রিজেন্ট হাসপাতালে র‌্যাবের অভিযানের পর থেকে তার ফোন বন্ধ রয়েছে।

ওই হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. আশীষ কুমার চক্রবর্তী গণমাধ্যমকে জানান, সিরাজুল ইসলাম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। তিনি তাদের হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘সাহেদকে আমি বলেছিলাম, যেহেতু আপনার হাসপাতাল কোভিড ডেডিকেটেড, তাই রিজেন্টে নিয়ে যান। তখন তিনি তার হাসপাতালে কোনও সার্ভিস না থাকার কথা বলেন।’

তিনি বলেন, আমাদের কাছে মো. সাহেদের ফোন নম্বর ছাড়া আর কারো নম্বর ছিল না। এখন তার সব নম্বর বন্ধ রয়েছে।

এরপর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সাহেদের স্ত্রীর ফোন নম্বর জোগাড় করে মারা যাওয়ার খবর দেন। পরে দুজন ব্যক্তি এসে মৃতদেহ নিয়ে যায়। দুজনের কেউই তাদের নিকটাত্মীয় নন।

সাহেদের বাবা সিরাজুলের অবস্থা গুরুতর হলে হাসপাতালে কর্তৃপক্ষ সাহেদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেন। কিন্তু যোগাযোগ করতে না পেরে তেজগাঁ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

জানা গেছে, ভর্তির পর প্রথম দুই দিন সাহেদ তার বাবার খোঁজ নিয়েছিলেন। যেদিন রিজেন্টে র‌্যাব অভিযান চালায় সেদিন রাতেও তিনি খোঁজ নিয়েছেন তিনি।

সাহেদের স্ত্রী সাদিয়া আরাবী গণমাধ্যমে জানান, তিন দিন আগে তার স্বামীর সঙ্গে শেষ কথা হয়েছিল। তখন তিনি ফোন করে জানিয়েছিলেন তিনি ভালো আছেন। এরপর থেকে তার আর যোগাযোগ নেই।

জানা যায়, এর আগে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তেজগাঁও থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছিল। সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় সিরাজুল একাই হাসপাতালে ছিলেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সাহেদ বা তাঁর প্রতিষ্ঠানের কাউকে খুঁজে না পাওয়ায় বিপাকে পড়ে। সমস্যা এড়াতে তাঁরা জিডি করেন।

গত সোমবার র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের নেতৃত্বে রিজেন্ট হাসপাতালের উত্তরা ও মিরপুর কার্যালয়ে অভিযান চালানো হয়। পরীক্ষা ছাড়াই করোনার সনদ দিয়ে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা ও অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছিল তারা। র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত অন্তত ছয় হাজার ভুয়া করোনা পরীক্ষার সনদ পাওয়ার প্রমাণ পায়। একদিন পর গত মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশে র‌্যাব রিজেন্ট হাসপাতাল ও এর মূল কার্যালয় সিলগালা করে দেয়। রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান সাহেদসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে ওই দিনই উত্তরা পশ্চিম থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করেন।

Related posts

রৌমারী জন্মান্ধ প্রতিভাবান মিজানুরের ৫ হাজার মোবাইল নম্বর মুখস্থ, নাম বললেই টাকা পাঠান

Ashish Mallick

সিদ্ধান্ত বদল মমতার, মোদীর শপথ গ্রহনে যাচ্ছেন না

SULTAN AHMMAD RAJU

জলঢাকা পৌরসভায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

Ashish Mallick

3 comments

ปั้มไลค์ July 10, 2020 at 11:26 am

Like!! I blog quite often and I genuinely thank you for your information. The article has truly peaked my interest.

Reply
ทิชชู่เปียกแอลกอฮอล์ July 10, 2020 at 11:27 am

Thank you ever so for you article post.

Reply
แผ่นกรองหน้ากากอนามัย July 10, 2020 at 11:29 am

These are actually great ideas in concerning blogging.

Reply

Leave a Comment

* By using this form you agree with the storage and handling of your data by this website.